কুড়িগ্রামে বিআরটিসি বাসের ধাক্কায় একই পরিবারের তিনজনসহ নিহত-৫

বিভাস প্রতিবেদক:
কুড়িগ্রাম রংপুর মহাসড়কের আরডিআরএস বাজারের কাছে বিআরটিসি বাস ও প্রাইভেট কারের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫জন নিহত হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৩জন একই পরিবারের সদস্য। এছাড়াও প্রাইভেট কারের চালক ও সহকারী চালকও নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, কুড়িগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা একটি বিআরটিসি বাস (ঢাকা মেট্রো-ব ১৪-৫৬৮৮) বিপরীত দিক থেকে আসা প্রাইভেট কারকে (ঢাকা মেট্রো-গ ২৫-৯৫৯৫) মুখোমুখি ধাক্কা দিলে প্রাইভেট কারটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলে প্রাইভেট কারের চালক নরসিংদী শহরের মৃত: শাহেদ আলীর পূত্র সোহেল মিয়া মারা যান। প্রাইভেট কারের সহকারি ওয়াসিম (৩০) , যাত্রী নরসিংদী জেলার শিশু পরিবারে কর্মরত সিনিয়র কারিগরি প্রশিক্ষক (টিআই) আকবর হোসেন (৫৮), তার স্ত্রী বিলকিছ বেগম (৪৫) ও পূত্র বেলাল হোসেন (২৬) হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায়। এ ঘটনায় আহত হয় আকবর হোসেনের মেয়ে আয়শা সিদ্দিকা (১৪)। তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। দুর্ঘটনার পর দুই ঘন্টা ওই সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে আহতদের উদ্ধার করে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করে দেয়। মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম।
কুড়িগ্রাম সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ারুল ইসলাম জানান, বিআরটিসি বাসটি চিলমারী থেকে গোপালগঞ্জের দিকে এবং প্রাইভেট কারটি নরসিংদী জেলা থেকে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার দিকে যাচ্ছিল। আরডিআরএস বাজারের কাছে দুর্ঘটনার পর বিআরটিসি চালক পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে একজন ও হাসপাতালে ৪জন মারা যায়।
কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রেদওয়ান ফেরদৌস সজীব মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, একজন ঘটনাস্থলে এবং ৪জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

Facebook Comments
Share
  •  
  •  
  •  
  •  
error: Encrypted Content!